Banner Image

বর্তমান-২০০০

সাল ২০১০ – এসআরকে নেরোল্যাকের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হলেন। ২০০৬ – জিএনপিএল-এর নাম বদলে হল কানসাই নেরোল্যাক। ২০০৪-২০০৬, লোট ও জৈনপুর কারখানা গ্রিনটেক সেফটি গোল্ড ও সিলভার অ্যাওয়ার্ডে সম্মানিত হয়। এই প্লান্টগুলিকে OHSAS18001 শংসাপত্রও দেওয়া ‌হয়। ব্র্যান্ড নেরোল্যাককে জনপ্রিয় করতে শ্রী অমিতাভ বচ্চনকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে সই করানো হয়। দুস্থ শিশুদের সাহায্যার্থে আকাঙ্খা ফাউন্ডেশনের সঙ্গে যৌথভাবে একাধিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

Banner Image

২০০০-১৯৯১

১৯৯৯ সালে ফোর্বস গোকাক ও সহযোগী সংস্থা কানসাই পেইন্টসের নিয়ন্ত্রণাধীন হয়। সংস্থার ৬৪.৫২% শেয়ারের নিয়ন্ত্রণ নেয় কানসাই পেইন্টস। ২০০০ সালে কানসাই পেইন্টস সংস্থাটির সমস্ত শেয়ার অধিগ্রহণ করে। নেরোল্যাকের “জব ঘর কি রৌনক বড়ানি হো” জিঙ্গল জনপ্রিয় হয়।

Banner Image

১৯৯০-১৯৮১

১৯৮৩-তে নেরোল্যাক বম্বে ও পুণেতে GNP101 অটো পেইন্টস বাজারে আনে। এর মধ্যে ছিল ২৪টি বেসিক শেড, মেটালিক রেঞ্জে ১২টি ও ভাইব্রান্ট রেঞ্জে ১২টি শেড। ক্যাথোডিক ইলেক্ট্রোডিপোজিশন প্রাইমার এবং গাড়ির জন্য অন্যান্য অত্যাধুনিক কোটিং উৎপাদনের উদ্দেশে ১৯৮৬ সালে ওসাকা শহরে জাপানের কানসাই পেইন্টস কোম্পানি লিমিটেডের সঙ্গে জিএনপিএল একটি TAA সই করে। জিএনপিএল-ই প্রথম সংস্থা যা ভারতের বাজারে এই প্রযুক্তি আমদানি করে।

Banner Image

১৯৮০-১৯৫০

১৯৭০ সালে সংস্থার ম্যাসকট হয় গুডি, দ্য স্মাইলিং টাইগার। ১৯৫৭ সালে সংস্থার নাম বদলে করা হয়েছিল গুডল্যাস পেইন্টস প্রাইভেট লিমিটেড। সংস্থার সবচেয়ে সফল পণ্যকে সংস্থার নামের সঙ্গে জুড়ে দিতেই এই পদক্ষেপ। ১৯৬৮ সালে সংস্থার শেয়ার বাজারে আসার ফলে প্রাইভেট শব্দটি সরিয়ে দেওয়া হয়। ১৯৫০-র দশকে সংস্থার স্টার প্রডাক্ট ছিল অ্যান্টি-গ্যাস ভার্নিশ। এটি মূলত সামরিক ক্ষেত্রে ব্যবহার হত।

Banner Image

শুরুর দিক – ১৯২০

ব্রিটেন, নভেম্বর ১৯৩০, ৩ ব্রিটিশ সংস্থা একত্রিত হয়ে গুডল্যাস ওয়াল অ্যান্ড লেড ইন্ডাস্ট্রিজ গ্রুপ লিমিটেড গঠিত হয়। পরবর্তীকালে এই সংস্থাই হয়ে ওঠে লেড গ্রুপ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। এপ্রিল ১৯৩৩, ইংল্যান্ডের লিভারপুল এলআইজি এই সংস্থাকে অধিগ্রহণ করে নাম রাখে গুডল্যাস ওয়াল (ইন্ডিয়া) লিমিটেড। ১৯২০-র
দশকের শুরুর দিকে ইংল্যান্ডের অ্যালেন ব্রস অ্যান্ড কোং লিমিটেড আমেরিকান পেইন্ট অ্যান্ড ভার্নিশ কোম্পানিকে কিনে নেয়। নতুন সংস্থার নাম হয় গাহাগ্যান পেইন্ট অ্যান্ড ভার্নিশ কোং. লিমিটেড।

আমাদের সম্পর্কে

1920 সালে, Gahagan রঙে এবং বার্নিশ মুম্বাই মধ্যে নিম্নতর পারেল হচ্ছে চলে আসে।শতাব্দী পরে, এই পেইন্ট কোম্পানির ভারতে দ্বিতীয় বৃহত্তম পেইন্ট কোম্পানী এবং শিল্প সবচেয়ে বিশ্বস্ত নামের এক হচ্ছে যে position- বাঁছনীয় হতে চলতে।

তাই এটা কানসাই Nerolac মত একটি হেভিওয়েট হচ্ছে একটি অপেক্ষাকৃত ছোট পেইন্ট কোম্পানির হওয়া থেকে যেতে সময় লাগবে?

এটা কঠিন কাজ এবং আবেগ লাগে।এটা তোলে প্রতিশ্রুতি ও সাহস লাগে।এটা তোলে নির্ভীক নতুনত্ব সঙ্গে এগিয়ে marching মানে।এটা তোলে ঝুঁকি নিয়ে এবং যখন তারা কাজ উদযাপন জড়িত।আর অঙ্কন বোর্ড ফিরে যাচ্ছে যখন তারা করে না।এটা তোলে গভীরভাবে গ্রাহকের চাহিদা খোঁজখবর রাখেন হচ্ছে মানে।এবং এখনও পরিবেশে বিনিয়োগ হচ্ছে।এটা তোলে আর ও D বিনিয়োগ, প্রযুক্তি, আপনার কর্মীসংখ্যার মধ্যে প্রয়োজন।আরো উল্লেখযোগ্য, এটা পণ্য এবং সাহসিকতাপূর্ণ সংকল্প প্রতি অবিচল বিশ্বাস প্রয়োজন।

এটা এই সব এবং আরো কারণ যে কানসাই Nerolac ভারত দ্বিতীয় বৃহত্তম লেপ কোম্পানী এবং শিল্প প্রলেপ লাগানো একটি বাজার নেতা।

অপরিহার্য সরঞ্জামগুলি

প্রক্রিয়া সহজ করার জন্য সহজ সরঞ্জাম এমনকি সহজ